Motivational Speech

কম দামে ওয়েবসাইট বানানোর সুবিধা-অসুবিধা || Website বানানোর আগে একবার পড়ে নিন

মোহাম্মদ আলমগীর লাবু

ভাইয়া, ওয়েবসাইটের দাম কত ?   

২-৫ হাজার টাকায় কেন করে দিতে পারবেন না !!!

অনলাইন বিজনেস করছেন বা করবেন তাদের জন্য সোশ্যাল মিডিয়ার পাশাপাশি ওয়েবসাইট দরকারী হয়ে উঠেছে। কারণ ওয়েবসাইট নিজের স্থায়ী অনলাইন ঠিকানা + নিজের সম্পদ। পাশাপাশি নিজের ব্যবসাকে প্রাতিষ্টানিক রূপ দিতে এবং নিজের ব্রান্ডিং করতে ওয়েবসাইট গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে, বিশ্বস্ততা বৃদ্ধি করে, দেশের গণ্ডি ছাড়িয়ে বহির্বিশ্বের সামনে উপস্থাপনের সুযোগ সৃষ্টি হয়।
.
.
৩-৪ লাইনে ওয়েবসাইটের সারকথা বোঝানোর চেষ্টা করলাম। এবার আসি আসল কথায়। যে প্রশ্নটি সব থেকে বেশি শুনতে হয় তা হলো, ভাইয়া ওয়েবসাইটের দাম কত? তারপর দাম যখন বলি তখন বলে যে অন্যরা ২-৫ হাজার টাকায় দিতে চায় সাথে আবার লাইফ টাইম সার্পোট আর আপনারা বলেন যে সম্ভব না! এটা কেমন কথা হল!
এরপরেই শুরু হয় আপনাদের কনফিউশন যে কি করবেন, কাকে দিয়ে বানাবেন, কে আসলেই ঠিকভাবে বানিয়ে দিতে পারবে এবং কে পারবে না, কে সত্যি কথা বলছে আর কে মিথ্যা বলছে, আসল দামই বা কত, ইত্যাদি ইত্যাদি ইত্যাদি হাজারো প্রশ্ন মনে উঁকি দেয়।
আসুন এবার গল্প করি ২ মিনিট। একটু ধৈর্য নিয়ে পড়ুন। হতাশ করবো না আশা করি।
.
.
মনে করুন, আপনি রাস্তায় কুড়িয়ে একটি তালা পেলেন। এবার সেই তালা দিয়ে আপনার গুরুত্বপূর্ণ জিনিস তালাবদ্ধ করে রাখলেন। আচ্ছা ঐ তালার চাবি যে অন্য কারো কাছে নেই সে বিষয়ে কি আপনি নিশ্চিত থাকতে পারবেন? নাকি সেই তালা দিয়ে গুরুত্বপূর্ণ জিনিস আটকিয়ে রাখা বুদ্ধিমানের কাজ হবে?
.
ধরুন, এক চোর একটি আইফোন চুরি করেছে এবং তার মোবাইল সম্পর্কে খুব বেশি ধারণা নায়। এখন সে ঐ আইফোনটা বিক্রি করবে। যেহেতু সে চোর তার কাজ হলো কোন রকম দাম পেলেই বিক্রি করে দেওয়া। এখন আপনার যদি সেই আইফোন যাচাই-বাছাই করার মত অভিজ্ঞতা না থাকে তাহলে কি সেই সেট চোরের কাছ থেকে কেনা উচিত হবে? আর চোর নিশ্চয় বলবে না যে সে চুরি করে এনে বিক্রি করছে। আর যদি ভুল করে কিনে ফেলেন মনে রাখতে হবে সেই আইফোন আপনি বেশিদিন ধরে রাখতে পারবেন না। তখন এদিক সেদিক বলাবলি করে কাজ হবে না।
একটা কমন সেন্সের প্রশ্ন করবেন নিজেকে যে, একটা দামী জিনিস একজন মানুষ কেন অল্প দামে বা ফ্রি তে দিবে? আর দিলে সেটার উদ্দেশই বা কি?
.
.
যখন কোন Unauthorized ব্যক্তি বা দোকান থেকে কোন মোবাইল ফোন কিনেন এবং সেটার নির্দিষ্ট সময়ের ভেতর কোন অংশ যদি নষ্ট হয় তাহলে কি Authorized সার্ভিস সেন্টারের সাপোর্ট পান??? না, পান না। কিন্তু যদি Authorized shop বা ব্যক্তি থেকে কিনতেন তাহলে কিন্তু নির্দিষ্ট সময়ের ভেতর নষ্ট হলে ডেডিকেটেড সাপোর্ট পেতেন।
তবে যদি Unauthorized ব্যক্তি বা দোকান থেকে কিনতে চান তাহলে রিস্ক ফেক্টর জেনে আপনাকে কিনতে হবে।
আমরা একটা জায়গায় প্রায় ভুল করি যে, Unauthorized ব্যক্তি বা দোকান থেকে কিনে যখন নষ্ট হয়ে যায় তখন authorized ব্যক্তি বা দোকানকে খারাপ বলে ট্যাগ লাগিয়ে দিয়ে থাকি।
.
যদি এখনও আমাদের গল্পগুলো পড়ে থাকেন তাহলে আপনাকে ধন্যবাদ। গল্পগুলো দেখে হয়ত বুঝতে পেরেছেন যে সস্তাতে মানুষ কিভাবে দেয় বা দিতে পারে। এরপরও অনেকে বলবেন আরে রাখেন মিয়া, আমার অমুকও আইটির কাজ পারে। তাদেরকে নিয়ে বেশি কিছু বলার নায়। অভিজ্ঞ আর স্বল্প অভিজ্ঞতার ভেতর যে বড় পার্থক্য থাকতে পারে সেটা বুঝতে হবে।
জ্বর জ্বর ভাব লাগছে তার মানে যে নাপা খেলেই হবে সেটা কিন্তু সঠিক নাও হতে পারে। হাতুড়ে ডাক্তার বা কবিরাজের সাথে বড় বড় ডিগ্রিধারী ডাক্তারকে গুলিয়ে ফেলা নিশ্চয় সমচীন হবে না।
.
যারা কম দামে ওয়েবসাইট বানিয়ে দিচ্ছে তারা ফ্রি থিম, নাল থিম, চুরি করা প্রিমিয়াম থিম বা ক্র্যাক ব্যবহার করা থিম, কোন ধরনের স্পাই লিংক সংযুক্ত থিম বা Bug থাকা থিম দিচ্ছে কিনা সেটা না বুঝলে কিন্তু বিপদের সম্ভাবনা বেশি থাকে।
আচ্ছা এইবার চলুন দেখি যারা দক্ষ কোম্পানি বা দক্ষ সফটওয়্যার ফার্ম তারা কেন পারে না-
.
.

মনে করুন ওয়ার্ডপ্রেস দিয়ে ওয়েবসাইট করবেন সেক্ষেত্রে

১।প্রিমিয়াম থিমের লাইসেন্স কেনা লাগে কারণ নিজেদের সুনামের জন্য চোরদের মত নাল বা ক্র্যাক থিম বা ফ্রি থিম ব্যবহার করতে পারে না
২।কাস্টমাইজ সেটআপের জন্য ডেলিভারীর সময় ও কাজের বিবেচনায় একজন, দুইজন বা তার থেকে বেশি ডেভেলপার লাগে
৩। অফিসের ভাড়া, বিদ্যুৎ বিল, ইন্টারনেট বিল, চা-নাস্তা ও অন্যান্য খরচ লাগে
৪। দরকার অনুযায়ী সার্ভিস দেওয়া লাগে সেখানেও সময় লাগে
৫। সিকিউরিটি ইস্যু নিয়ে সর্বোচ্চ সচেতনতা দরকার হয়
৬। বেসিক ট্রেনিং দেওয়া লাগে তার মানে অবশ্যই সময় ইনভেস্ট করা লাগে
.
দক্ষ ফার্মগুলো সময় অনুপাতে পেমেন্ট নিয়ে থাকে। কিন্তু শুধু পেমেন্ট দেখলেই হবে না। তারা যে Responsibility দেখায় সেটা অন্যদের কাছে আশা করা যায় না। কারণ মার্কেট রেপুটেশন ফ্যাক্ট। আবার তার মানে এটা নয় যে খুব বেশি অতিরিক্ত কিছু চার্জ করে বসে। কারণ Ideal Principle না থাকলে সেই প্রতিষ্টান বড় হতে পারে না।
.
তবে সঠিক ভাবে যাচাই-বাছাই না করলে প্রতারণার স্বীকার হতে পারেন এমন কোম্পানি বা ফার্মও বিদ্যমান।
এবার সিদ্ধান্ত নিন যে ২ হাজার বা ৫ হাজার টাকার ওয়েবসাইট বানাবেন নাকি দক্ষ কোম্পানির সাথে অনলাইন বা সরাসরি মিটিং করে আপনার যাবতীয় রিকোয়ারমেন্ট অনুযায়ী অর্থ প্রদান করে বানাবেন সেটা আপনার একান্ত নিজস্ব ব্যাপার।
আর আচ্ছা আমি ওয়েবসাইট বানাবো কত নিবেন?
.
দুঃখিত! এটা মাছের বাজার না। এখানে সব ধরনের রিকোয়ারমেন্ট শুনে, বুঝে, জেনে প্রাইসিং করতে হয় এবং আলোচনা সাপেক্ষে সেটা পরিবর্তিত বা পরিবর্ধিত হয়ে থাকে।
.

ধন্যবাদান্তে

Alamgir Labu

Managing Director

Labus tech

.

আমাদের আরো পপুলার আর্টিকেল

2 Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Related Articles

Back to top button
error: Alert: Content is protected !!