Entrepreneur

গল্পে গল্পে বিশ্বস্ত উদ্যোক্তাদের পরিচিতি- পর্ব : 03

SM ALAMGIR

গল্পে গল্পে বিশ্বস্ত উদ্যোক্তাদের পরিচিতি- পর্ব : 03

 

যারা প্রথম ও দ্বিতীয় পর্ব দেখেন নি, তারা নিচের লিংক গুলোতে  গিয়ে প্রথম ও দ্বিতীয় পর্ব দেখে নিন। তা না হলে, তৃতীয় পর্ব ভালো ভাবে বুঝবেন না।

প্রথম পর্বের লিংক : গল্পে গল্পে বিশ্বস্ত উদ্যোক্তাদের পরিচিতি- পর্ব : 01

দ্বিতীয় পর্বের লিংক : গল্পে গল্পে বিশ্বস্ত উদ্যোক্তাদের পরিচিতি- পর্ব : 02

.

.

দ্বিতীয় পর্বের পর……….

চোখের পলক ভারী হতে না হতেই হঠাৎ মনে স্মরণ হলো, কিছু দিন ধরে লক্ষ্য করছি সকালে ব্রাশ করার সময় দাঁতের মাড়ি থেকে রক্ত আসে। বিষয়টা অবহেলা করা ঠিক হবে না। নিদ্রার দেশে যাওয়ার ঠিক  আগ মূহুর্তে ক্ষনিকের সময়ের জন্য মোবাইলের দিকে দৃষ্টিপাত করলাম, যদিও নিম্নগামী পথযাত্রা দু’নয়য়ের পাতা কিছুতেই আমার কথা শুনছে না। সে তার নিচ গন্তব্যে যাওয়ার জন্য আমার সাথে যুদ্ধ ঘোষণা করতেছে।

এহেন পরিস্থিতিতেও আমার সব থেকে কাছের জিনিসটি হাতে নিয়ে স্কিনে দিকে তাকালাম। ভাবলাম এখন আর দেরি করা ঠিক হবেনা, সঙ্গে সঙ্গে আকলিমা আক্তার আপুকে মেসেস করলাম। আকলিমা আপুকে ফোন করা কারণ হলো- আমি আপুর অনেক দিন আগে একটি ফেসবুক পোস্টের প্রতি লক্ষ্য করেছিলাম। যেখানে আপু দাঁতের মাড়ি থেকে রক্ত পড়ার সলিউশনের জন্য একটি টুটপেস্ট সাজেস্ট করেছিল। সময় নষ্ট না করে রাতেই প্রোডাক্টটি অর্ডার করে দিলাম। অর্ডার করার সাথে সাথেই ঘুমের সাথে যুদ্ধে পরাজিত হলাম।

 

 

কিছুক্ষন পর পিছনের দিকে লক্ষ্য করে দেখলাম- নারীদের হট্টগোল শোনা যাচ্ছে। কয়েক কদম পিছনে গিয়ে দেখলাম Nazmoon Ela,  Shama Chowdhury, Umma salma, Sanjida chowdhury, Soma Dey , Farzana Hossain , Fahima Fahi এবং সোনালী আক্তার আপু সহ অনেকেই বসে বসে আড্ডা দিচ্ছে। আমার মতো হয়ত অনেকেই এই আপুদের নাম শুনে চিনতে পারছেন না। আমিও ভালো করে চিনতাম না। কিন্তু ৮ই মার্চ আন্তর্জাতিক নারী দিবস উপলক্ষে Digital E-commerce Market Place কর্তৃক আয়োজিত “নারী উদ্যোক্তা সম্মাননা ও আলোচনা সভা” – এ উপস্থিত হয়ে সবার সাথে পরিচিত হতে পেরেছি। আপু গুলো খুব ফ্রেশ মনের মানুষ।

তাদের সাথে কিছুক্ষন সময় আলোচনা করে, বিদায় নেওয়ার সময় দেখি রানা ইসলাম ভাই বিমান নিয়ে এসেছে, আমাকে নিয়ে যাওয়ার জন্য। আমি তো মহা খুশি। এ লাফে বিমানে উঠতে গেলাম, কিন্তু পা পিছলে নিচে পড়ে দেখি….. আপুরা সবাই আকাশে মেঘের উপরে আড্ডা দিচ্ছিল। আমি বিমানে উঠার সময় সেই মেঘ থেকেই মাটিতে পড়ে যাচ্ছি।  বাঁচাও বাঁচাও বলে চিৎকার করতে লাগলাম। আমার হোমমিনিস্টার কুনুই দিয়ে জোরে একটা গুতা দিয়ে বললো “ বুড়া কালে স্বপ্নে ভিমরতি ধরছে ?”। ……. লে হালুয়া …..।  পরক্ষনে জানতে পারলাম। যা ঘটল তা স্বপ্নে ঘটল। …. লেও ঠেলা ।  বাঁচলাম বলে দীর্ঘশ্বাস ফেলে আবার শুয়ে পড়লাম।

 

 

পরদিন সকালে অফিসের যাওয়ার আগে মনে মনে ভাবতেছিলাম, অনেক দিন হলো ঢাকায় আছি, মা কে একবার ঢাকায় আনার দরকার, সামনে আবার মেয়ে জন্মদিন। সব মিলিয়ে মনে করলাম মাকে আনবোই। কিন্তু মা তো বোরকা ছাড়া কোথাও বের হয়না।  তাই বুদ্ধি করে এনি আক্তার বারি আপুকে মেসেস করে একটি বোরকার অর্ডার করলাম। ঠিকানা স্বরূপ মায়ের ঠিকানা দিয়ে দিলাম।

মেয়ের জন্মদিন আসার এক সপ্তাহ আগ থেকেই মেয়ের বায়নার যেন শেষ নেই। আজ এ বায়না তো কাল ঐ বায়না। একদম জিদ ধরে বসলো, আগামী সাত দিন তাকে কেক কিনে দিতে হবে। সে একসপ্তাহ কেক কাটার প্রাকটিস করবে। যাতে জন্মদিনের দিন কেক কাটতে ভুল না হয়। ….. লেও ঠেলা ।

হোমমিনিস্টার বললো- প্রতিদিন কেক অর্ডার করা যাবে না। তার থেকে ভালো একটি কাজ করো। মেহজাবিন মেঘ আপুকে ফোন দাও। তার কাছে কেক বানানো মেশিন আছে। ইউটিউব থেকে কেক বানানোর সিস্টেম শিখে নিবো। বুদ্ধিটা খারাপ না, সঙ্গে সঙ্গে মেহজাবিন মেঘ আপুকে মেসেস করে কেক বানানো মেশিন সহ রান্না ঘরের কিছু প্রয়োজনীয় প্রোডাক্ট অর্ডার করলাম।

 

            

[লগো স্পনসর এবং সাথে ফেসবুক পেইজ প্রোমোট  করতে যোগাযোগ করুন- 01716 216512 নাম্বারে]

.

সামনে মেয়ের জন্মদিন। অনেক কিছু কেনা কাটা করতে হবে, কার কার কাছে কি কি আছে কমেন্ট করে জানান। চতুর্থ পর্বে তাদের নাম ও প্রোডাক্টের পরিচয় তুলে ধরবো । তো আর দেরি কেন ? এখুনি কমেন্ট করে, লেখাটি শেয়ার করে দিন।

.

.

.

 সব শেষে আপনাকে বিনীত ভাবে অনুরোধ করছি ,  আমাদের এই ছোট্ট উদ্যোগটি  আপনাদের যদি ভালো লাগে তবে সর্বদা আমাদের পাশে থেকে আমাদের সাহস বাড়াতে পোস্ট গুলোতে লাইক, কমেন্ট এবং শেয়ার করে আমাদের কাজের স্পৃহা আরো বাড়িয়ে দিতে আপনারা বিশেষ ভূমিকা রাখবেন এবং সেই সাথে আপনার একটি শেয়ার হয়তো আপনার নিকটস্থ কারো জন্য একটি নতুন দরজা খুলে দিতে পারে । সেই আশা বাদ ব্যক্ত করে সবাইকে আবারো ধন্যবাদ দিয়ে বিদায় নিচ্ছি।  আজ এ পর্যন্ত । সবাই ভালো থাকুন সুস্থ্য থাকুন। দেখা হবে পরবর্তী নতুন কোন আর্টিকেলে।  আল্লাহ হাফেজ।

.

.

.

আমাদের আরো পপুলার আর্টিকেল

 

3 Comments

  1. পড়লাম খুব ভালো লাগলো। আর আমার নাম দেখে তো আরো অনেক খুশি হলাম। জাযাকাল্লাহু খাইরান ভাইয়া

  2. খুব ভালো লাগল,
    পরবর্তী পর্বের আশায় থাকলাম

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Related Articles

Back to top button
error: Alert: Content is protected !!