History

যে অন্য জাতির দালালি করার জন্য তার স্বজাতির সাথে অনায়াসে এমন গাদ্দারি করতে পারে, তার এই পরিণতিই হওয়া উচিত

চাতক পাখি

চাতক পাখি-

ইসলামের ইতিহাসে পঞ্চম আব্বাসীয় খলিফা হারুন অর রশীদ।

.

.

তাকে ইসলামী স্বর্ণযুগের খলিফা বলা হয়। কারণ তিনি রাতে ঘুরে ঘুরে প্রজাদের অবস্থা দেখতেন। বেশির ভাগ সময় তিনি ছদ্মবেশে শহরে ঘুরতেন। নিজের শাসন অধিভুক্ত রাজ্যে কেউ অপরাধ করলে তিনি খতিয়ে দেখতেন নিজের কর্তব্যপরায়নতার জায়গা থেকে। অপরাধের জন্য নিজের ও রাজ্য অব্যবস্থার দায় খুঁজে পেলে সাজা মাথা পেতে নিতেও কুণ্ঠাবোধ করেননি। তিনি প্রতিষ্ঠা করেছেন ইসলামের আইনে ন্যায়বিচার। হারুন অর রশীদের শাসনামলে বিজ্ঞান, ধর্মীয় ও সাংস্কৃতিক সমৃদ্ধির জন্য এই যুগকে সবচেয়ে উন্নত ধরা হয়। রাজনীতিতেও তিনি রেখেছিলেন বীরত্বপূর্ণ ভূমিকা।

.

.

বাদশাহ হারুনুর রশীদের কাছে এক লোক একটি চাতক পাখি বিক্রি করার জন্য নিয়ে এলো।

 বাদশা হারুনুর রশীদ  দাম জিজ্ঞেস করলেন-

লোকটি  বাজারমূল্যের চেয়েও অনেক বেশি দাম চাইলো।

.

বাদশাহ জানতে চাইলেন, পাখিটির এত দাম কেন? অথচ তার একটি পা নেই!

লোকটি বললো, মার্জনা করবেন জাঁহাপনা!

দেখতে সাধারণ হলেও এটি আসলে একটি বিশেষ ধরণের পাখি। এর বিশেষত্ব হলো- আমি যখন শিকারে যাই, তখন এই চাতক পাখিটিকেও সঙ্গে করে নিয়ে যাই।

.

আমার পাতানো ফাঁদের সাথে এই পাখিটিকেও বেঁধে রাখি। এই পাখিটি তখন অত্যাশ্চর্য এক আওয়াজে অন্য পাখিদের মনোযোগ আকর্ষণ করে।

.

তার এই আওয়াজ শুনেই ঝাঁকে ঝাঁকে পাখিরা এসে জড়ো হয়। তখন আমি একসাথে সব পাখিকে শিকার করি। বলা যায় এই পাখিটিই আমার শিকারের প্রধান ফাঁদ।

.

বাদশাহ তার কথা শুনে পাখিটিকে শিকারীর চাহিদা অনুযায়ী চড়া দামেই কিনলেন এবং সাথে সাথে জবাই করে ফেললেন।

.

শিকারী অবাক হয়ে জিজ্ঞেস করলো,

জাঁহাপনা! আপনি অনেক দামে কেনা পাখিটি এভাবে জবাই করে দিলেন?

.

তখন বাদশাহ হারুনুর রশীদ তাকে একটা মহামূল্যবান কথা বললেন, যা ইতিহাসে আজও অমর হয়ে আছে।

তিনি বললেন:-

“যে অন্য জাতির দালালি করার জন্য তার স্বজাতির সাথে অনায়াসে এমন গাদ্দারি করতে পারে, তার এই পরিণতিই হওয়া উচিত”।

.

.

ধন্যবাদ সবাইকে

One Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Related Articles

Back to top button
error: Alert: Content is protected !!